শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত ও মিয়ানমারের মাদকে দেশের যুবসমাজ ধ্বংস হচ্ছে

sorasto20160220102707স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ভারত ও মিয়ানমারের মাদক দেশের যুবসমাজকে ধ্বংস করছে। এ দুটি দেশ মাদক তৈরি করছে ব্যাপক হারে। এসব মাদক সীমান্ত পথে দেশে প্রবেশ করছে। বাংলাদেশে কোনো মাদক তৈরি হয় না। সরকার চেষ্টা করছে সীমান্তের নিরাপত্তা বাড়িয়ে চোরাই পথে এসব মাদক প্রবেশ বন্ধ করতে।শনিবার দুপুরে র‌্যাপিড অ্যাকশ্যন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব-৭) চট্টগ্রামের পতেঙ্গাস্থ সদর দফতরে বিভিন্ন সময়ে উদ্ধার বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
তিনি বলেন, চৌকস বাহিনী হিসেবে দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় র‌্যাব দায়িত্ব পালন করছে। দেশব্যাপী অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদের বিস্তার রোধ, জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমন, রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ মামলা তদন্ত প্রভৃতির পাশাপাশি দেশব্যাপী মাদকের বিস্তার রোধে এলিট ফোর্স হিসেবে র্যাব কর্মদক্ষতা, পেশাদারিত্ব ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আসছে।
যুবসমাজকে মাদকের এই ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দেশব্যাপী বিভিন্ন ধরনের মাদকের বিরুদ্ধে সততা, নিষ্ঠা ও সাহসিকতার সাথে নিয়মিতভাবে অভিযান পরিচালনা করে আসছে, যা দেশের সর্বস্তরের জনসাধারণ কর্তৃক ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।তিনি বলেন, প্রয়োজন দেশের যেকোনো জায়গায় র‌্যাব অভিযান চালাতে পারবে।
র‌্যাব-৭ এর পরিচালক মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, র‌্যাব এর মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, স্থানীয় সংসদ সদস্য এম এ লতিফ, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ, জ, ম নাছির উদ্দিন, সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, বিভাগীয় কমিশনার রহুল আমীন, জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন ও সিএমপি কমিশনার আব্দুল জলিল মণ্ডল।
র‌্যাব-৭ এর পরিচালক মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, ১ জানুয়ারি ২০১৫ হতে ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ পর্যন্ত ১৩ মাসে র্যাব-৭ প্রতিনিয়ত অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৭৮ লক্ষ ৫২ হাজার ১৬৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১,৬৯২ বোতল বিদেশি মদ, ৮৫৭ ক্যান বিয়ার, ০৫ লক্ষ ৭৭ হাজার ৫৩২ লিটার দেশীয় মদ, ২৯৬.২২৬ কেজি গাঁজা, ৮,৩৯৯ বোতল ফেন্সিডিল এবং ১.৭০০ কেজি ৫২৯ পুরিয়া হেরোইন আটক করেছে।
তিনি আরো জানান, আটককৃত এসব মাদক দ্রব্যের মধ্যে ৪৫,২৯,২০০ পিস ইয়াবা, ১৫২.৭০০ কেজি গাঁজা, ৪,৩১৯ বোতল ফেন্সিডিল, ২৩৯ বোতল বিদেশি মদ এবং ৩১৪ ক্যান বিয়ার আজ (শনিবার) আনুষ্ঠানিক ধ্বংস করা হয়েছে। যার আনুমানিক মূল্য ১৮১ কোটি ৪৮ লক্ষ ০৭ হাজার ৯০০ টাকা। একই সময়ে মাদক ব্যবসা ও মাদক পাচারের সঙ্গে জড়িত মোট ৩২১ জন অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এ ছাড়াও বিভিন্ন অভিযানে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম উল্লেখিত সময়ে ১৪৬টি বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র (একে ৪৭- ০৩টি, একে ২২- ০৯টি, বিদেশি পিস্তল-৪৯টি, রিভলবার-১০টি, দেশীয় বন্দুক-১৬টি, এলজি- ১১টি, এসবিবিএল-৫টি, থ্রি কোয়ার্টার গান-২টি, ওয়ান শুটার গান- ২৮টি, শর্টগান-৫টি, ডিবিবিএল-১টি, পাইপগান-৭টি) সহ মোট ৭২টি ম্যাগজিন, ৪,৮৮৩ রাউন্ড বিভিন্ন ধরনের গুলি/কার্তুজ, ৭৬টি শক্তিশালী তাজাবোমা, ৪২০ কেজি বিস্ফোরক পদার্থ, ৪৯টি ককটেল, ১২টি পেট্রলবোমা এবং ৩০ প্রকারের বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করে আইনানুগ মামলা ও কার্যক্রম গ্রহণ পূর্বক থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে র‌্যাব পরিচালক উল্লেখ করেন।