রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান চলবে না

news-image

জঙ্গি নিধনে বাংলাদেশের দুর্গম ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় যদি কোন জঙ্গি/সন্ত্রাসী ঘাঁটি থাকে সেখানে ভারতের সহযোগিতায় অভিযান চালাবে বাংলাদেশই। ভারত দ্রুত অভিযান চালানোর তাগিদ দিলেও বাংলাদেশ আরো সময় নিতে চায় এবং ভারত যেন এককভাবে নিজেদের মতো অভিযান না করে সে ব্যাপারেও সাবধান করে দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। এ বিষয়ে গত ৬ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একান্ত  বৈঠকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলোচনা করেছেন বলেও একটি সুত্র জানিয়েছে।

ইতোমধ্যে পাবর্ত্য চট্টগ্রামের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা ও বিভিন্নস্থানে সন্দেহভাজন ৩৯টি আস্তানার তালিকা ভারতীয় সীমান্ত বাহিনী বিএসএফকে দিয়েছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)। গত ৬ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে কূটনৈতিক বিশেষ সূত্র আভাস দিয়েছে।

সূত্রমতে, জঙ্গী ইস্যুতে ‘জিরো টলারেন্স’ ঐক্যে অন্যতম শর্তছিলো সীমান্তবর্তী অঞ্চলের জঙ্গি ঘাঁটিগুলোতে অভিযান চালাতে পারস্পারিক সহযোগিতা করা। ভারত দ্রুত অভিযান পরিচালনা দেখতে চায়। পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী তাদের গোয়েন্দা সংস্থার প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় অভিযান পরিচালনার প্রস্তাব দিয়েছেন বলেও জানা গেছে। তবে শেখ হাসিনা এই প্রত্যক্ষ সহযোগিতার প্রস্তাব সরাসরি প্রত্যাখ্যান বা গ্রহণ কোনোটাই না করে সর্বাত্মক  সহযোগিতা করতে সম্মত হয়েছেন এবং জঙ্গি ইস্যুতে ভারতীয় বাহিনীর সঙ্গে একাত্ম হয়ে কাজ করার সম্মতি দিয়েছেন।

নয়াদিল্লির একটি সূত্রে জানা গেছে, ভারত সরকার অনেকদিন আগ থেকেই বলে আসছিল, উত্তর-পূর্ব ভারতের জঙ্গিরা মূলত বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহের দুর্গম অঞ্চলকে তাদের অভয়ারণ্য হিসেবে ব্যবহার করছে। তারা ভারতে গিয়ে একটি ঘটনা ঘটিয়ে গোপন শিবিরে এসে আশ্রয় নেয়। সর্বশেষ খাগড়াগড় ও বর্ধমান বিস্ফোরণের ঘটনার পর বিষয়টি অনেকটাই ওপেন সিক্রেট হয়ে যায়।

নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরে কানেক্টিভিটির বিষয়টি যতোটা গুরুত্ব¡পূর্ণ ছিল, তার থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিলো জঙ্গি দমনে ভারতকে নিয়ে অভিযান চালাতে সম্মতি দেয়া। ভারতীয় সেনাবাহিনী প্রধান দলবির সিংহের গত দুদিনের বাংলাদেশ সফরেও এ বিষয়টি আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, মোদির ঢাকা সফরের আগে থেকেই বিএসএফ ও বিজিবির বৈঠকগুলোতে এনিয়ে আলোচনা চলছে। এসব বৈঠকে বিএসএফ দাবি করেছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ অঞ্চলের গভীর অরণ্যে উত্তরপূর্বাঞ্চলের নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনগুলির বেশ কিছু গোপন শিবির রয়েছে। গতমাসে অনুষ্ঠিত বিজিবি-বিএসএফের সর্বশেষ বৈঠকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ঘাঁটি করে উত্তর-পূর্বের জঙ্গিরা বাংলাদেশের মৌলবাদী শক্তিগুলির সঙ্গে হাত মিলিয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে। এটা বাংলাদেশের জন্যও হুমকি হয়ে উঠছে। এসব শিবিরে আত্মগোপনকারী জঙ্গিদের গতিবধির উপর নজরদারি করতে শুরু করেছে বিএসএফ এবং বিজিবি।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠকে জঙ্গি ইস্যুই বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হলে শেখ হাসিনার সরকারই বেশি ঝুঁকির মধ্যে থাকবেন এমন ইঙ্গিতও দেয়া হয়েছে ভারতের পক্ষ থেকে। শেখ হাসিনা এ বিষয়ে মোদির সঙ্গে একমত পোষণ করেন এবং জঙ্গি নিধনে একসঙ্গে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন। কী উপায়ে এসব অভিযান চালানো হবে তার বিস্তারিত এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে মোদির সফরের পরপরই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে দেশের জঙ্গি ঘাঁটিগুলোর বিষয়ে তৎপরতা শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র বলছে, বিএসএফ অনেকদিন থেকেই এ ব্যাপারে তাদের রূপরেখা তৈরি করে রেখেছে । মাঝে মাঝে কিছু কাজও হচ্ছে। তবে সেটি খুব সীমিত আকারে হওয়ায় জানাজানি হচ্ছে কম।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, জঙ্গি দমনে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। তিনি মনে করেন, এ ব্যাপারে ভারত সরকার বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা ছাড়া কোনো ধরণের কাজ করবে না। মিয়ানমারের ঘটনা আর বাংলাদেশের ঘটনা এক নয়। আলোচনার মাধ্যমে জঙ্গি সমস্যার সমাধান করা হবে।

এছাড়া বিশেষজ্ঞদের মতে, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মিয়ানমার বাহিনীর সঙ্গে তুলনীয় নয় এবং এর সক্ষমতা ও মর্যাদা বিশ্বমানের সেটা ভারত মান্য করে।


আমাদের সময়.কম

এ জাতীয় আরও খবর

দুদকের মামলা স্থগিতে বদির আবেদন খারিজ

সকালে তীব্র, দুপুরে সহনীয় যানজট

অর্থ আত্মসাৎ: নর্থ সাউথের চার ট্রাস্টিকে গ্রেফতারের নির্দেশ

‘মুজিব’ সিনেমার ট্রেলার দেখে সবাই কেন হতাশ তার কারণ পাচ্ছেনা পরিচালক

হয়রানির শিকার বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা

অ্যান্থনি নরম্যান আলবানিজকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

উত্তরায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আজ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু

কাশিমপুর কারাগারে নারী হাজতির মৃত্যু

সিঙ্গাপুরের হেড কোচ হলেন সালমান বাট

ধানুশের আসল বাবা-মা নাকি তারাই! মানতে নারাজ অভিনেতা

পাকিস্তানি নারীর ‘প্রেমের ফাঁদে’ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার, ভারতীয় সেনা গ্রেপ্তার