রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তাহাজ্জুদ মন ও চরিত্রকে নির্মল করে

news-image

তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নাত। নবি সা. সব সময় এ নামাজ নিয়মিতি আদায় করতেন এবং সাহাবায়ে কেরাম রা. দেরও তা নিয়মিত আদায় করার জন্য উদ্বুদ্ধ করতেন। পবিত্র কুরানে তাহাজ্জুদ নামাজের জন্য বিশেষভাবে তাকিদ করা হয়েছে। যেহেতু উম্মতকে নবির অনুসরণ করার হুকুম করা হয়েছে সে-জন্যে তাহাজ্জুদের এ তাকিদ পরোক্ষভাবে গোটা উম্মতের জন্য করা হয়েছে।
কোরান বলছে, এবং রাতের কিছু অংশে তাহাজ্জুদের নামায আদায় করতে থাক। এটি তোমার জন্যে আল্লাহর অতিরিক্ত দয়া ও অনুগ্রহ। শীঘ্রই আল্লাহ তোমাকে উভয় জগতে মর্যাদায় ভূষিত করবেন। (বনি ইসরাইল :৭৯)
যারা নিয়মিত তাহাজ্জুদের নামায আদায় করেন, কোরানে তাদেরকে মুহসেন ও মুত্তাকি নামে অভিহিত করে তাদেরকে আল্লাহর রহমত এবং আখেরাতে চিরন্তন সুখ-সম্পদের অধিকারী বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। কোরান বলছে, নিশ্চয়ই মুত্তাকি লোক বাগ-বাগিচায় এবং ঝর্নার আনন্দ উপভোগ করতে থাকবে এবং যে যে নিয়ামত তাদের প্রভু তাদেরকে দিতে থাকবেন সে-গুলো তারা গ্রহণ করবে। (কারণ) নিসন্দেহে তারা এর পূর্বে দুনিয়ার জীবনে নেক আমলওয়ালা ছিল। তারা রাতের খুব অল্প অংশেই ঘুমাতো এবং শেষ রাতে ইস্তেগফার করতো (সূরা যারিয়াত : ১৫-১৮) প্রকৃতপক্ষে তাহাজ্জুদ নামাজ মন ও চরিত্রকে নির্মল ও পবিত্র করার এবং সত্য পথে অবিচল থাকার জন্যে অপরিহার্য ও কার্যকর পন্থা।
কোরানুল কারিমের ভাষ্য হল, রাতে ঘুম থেকে ওঠা মনকে দমিত করার জন্যে খুব বেশি কার্যকর এবং সে সময়ের কোরান তেলাওয়াত বা জিকির একেবারে যথার্থ। (সূরা মুজ্জাম্মিল : ৬) তাহাজ্জুদ নামাজ আদায়কারী আল্লাহ তায়ালা তার প্রিয় বান্দা বলেছেন এবং নেকী ও ইমানদারীর সাক্ষ্য দিয়েছেন।
কোরান বলছে, তারা আল্লাহর প্রিয় বান্দা, যারা তাদের প্রতিপালকের দরবারে সেজদা করে এবং দাঁড়িয়ে থেকেই রাত কাটিয়ে দেয়। (সুরা ফুরকান : ৬৩-৬৪)
মুমিনদের এ বিশেষ গুণ তাদেরকে কুফরের প্রবল আক্রমণের মোকাবেলায় অটল রাখতো এবং বিজয় এনে দিতো কোরান বলছে, এ সব লোক অগ্নিপরীক্ষায় অটল-অচল, সত্যের অনুরাগী, পরম অনুগত, আল্লাহর পথে সম্পদ উৎসর্গকারী এবং রাতের শেষ প্রহরে আল্লাহর কাছে ভুলত্রুটির জন্যে ক্ষমাপ্রার্থী। (সূরা আল ইমরান : ১৭)
নবি কারিম সা. তাহাজ্জুদ বিষয়ে বলেছেন, হজরত আব্দুল্লাহ বিন সালাম রা. বলেন, নবি সা. যখন মদিনায় তাশরিফ আনেন তখন প্রথম যে কথাগুলো তার মুখ থেকে শুনি তা হল হে লোক সকল! ইসলামের প্রচার ও প্রসার কর, মানুষকে আহার দান কর, আত্মীয়তার সম্পর্ক অটুট রাখ, আর যখন মানুষ ঘুমিয়ে থাকবে তখন তোমরা রাতে নামাজ আদায় করতে থাকবে। তাহলে তোমরা নিরাপদে বেহেশতে যাবে। (ইবন মাজাহ, তিরমিজি শরিফ)
হযরত সালমান ফারসি রা. বলেন, নবিজি বলেছেন, তাহাজ্জুদ নামাজের ব্যবস্থাপনা কর, এ হচ্ছে ভাল মানুষের স্বভাব, এ তোমাদেরকে আল্লাহর নিকটবর্তী করে দিবে, গুনাহ মাফ করবে, গুনাহ থেকে বাঁচিয়ে রাখবে এবং শরীর থেকে রোগ দূর করবে।
অন্য আরেক সময় তিনি বলেন, ফরজ নামাজের পর সবচেয়ে উৎকৃষ্ট নামাজ হল তাহাজ্জুদের নামাজ। (মুসলিম শরিফ, মুসনাদে আহমদ)
তিনি আরও বলেন, রাতের শেষ সময়ে আল্লাহ তায়ালা দুনিয়ার আকাশে আসেন এবং বলেন, ডাকার জন্যে কেউ আছে কি যার ডাক আমি শুনব, চাওয়ার জন্যে কেউ আছে কি যাকে আমি দেব, গুনাহ মাফ চাওয়ার কেউ আছে কি যার গুনাহ আমি মাফ করব? (সহিহ বুখারি)
তাহাজ্জুদ নামাজের সময় ও রাকাত :
তাহাজ্জুদের অর্থ হল ঘুম থেকে জাগা। রাতের কিছু অংশ ঘুমিয়ে থাকার পর ওঠে নামাজ আদায় করা। তাহাজ্জুদের মসনূন সময় হল, এশার নামাজ পর লোকে ঘুমাবে। তারপর অর্ধেক রাতের পর উঠে নামাজ পড়বে। তবে শেষ রাতে ওঠার সুযোগ না হলে এশার নামাজের পরও পড়া যাবে। দুই রাকাত থেকে শুরু করে আট রাকাত পর্যন্ত আদায় করা যায়। অবস্থা ও সুযোগের প্রেক্ষিতে যতটা পড়া সম্ভব ততটা পড়লেই চলবে।

এ জাতীয় আরও খবর

‘দাদাগিরি’র গ্র্যান্ড ফিনালেতে নাচলেন সৌরভ-ডোনা

ফাঁকিবাজ শিক্ষকদের শাস্তিযোগ্য বদলি প্রয়োজন: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

আমি কোন সার্জারি করিনি, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা: সাফা কবির

বড় পরিবর্তন আসছে এনটিআরসিএতে, থাকছে না নিবন্ধন পরীক্ষা

ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে ফিলিস্তিনি কিশোর নিহত

বজ্রপাতে মাঠেই পুড়লো কৃষকের ধান

গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ সেবনে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি’

নওগাঁয় ঝরে পড়া আম বিক্রি হচ্ছে ২ টাকায়

সিভিল কেস ‘বেগুন ক্ষেতের মতো’, এটা পরিবর্তন করতে হবে

‘পানি সংকটে’ রাজশাহীতে কমেছে গমচাষ

ভোটগ্রহণের দিনে নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ আদালতের

তালাক দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আপত্তিকর’ ছবি ফাঁস করলেন স্বামী