বৃহস্পতিবার, ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত

vashani1ডেস্ক রির্পোট : মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ১৩ শিক্ষার্থীকে শারীরিক নির্যাতন ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া আরও ৫ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

প্রক্টর ড. মোহাম্মদ খাদেমুল ইসলামের সভাপতিত্বে বুধবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত প্রক্টরিয়াল বডির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

একই সঙ্গে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না তা ৭ কার্য দিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া বিনা অনুমতিতে তাদের বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. আজিজুল হক জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথমবর্ষের ছাত্র দিদারুল ইসলাম দিদারকে মারপিট করার অভিযোগে বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথমবর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. ইফতিয়ার আহম্মেদ নিরব, আলী হোসাইন আমানুল্লাহ ও যুব ভূঁইয়াকে সামায়িক বহিষ্কার করা হয়েছে এবং একই বিভাগের শিক্ষার্থী সাদ আল জামানী, শহিদুর রহমান রুপম, মো. হাবিবুর রহমান, রাকিবুল হাসান ও আব্দুল্লাহ আল মামুনকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া পরিসংখ্যান বিভাগের প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. মোহাইমিনুল ইসলাম ইমন ও হৃদয় হোসেনকে নির্যাতন করায় রসায়ন বিভাগের তৃতীয় বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারের এসএম রবিউল হাসান, একই বিভাগের প্রথম বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারের আব্দুল্লাহ আল রায়হান ও মো. আনিছুর রহমান সিদ্দিক, ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ইয়াসিন আরাফাত, প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের আশরাফুল আলম, এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ওমর ফারুক, ফুড টেকনোলজি অ্যান্ড নিউট্রিশনাল সায়েন্স বিভাগের মো. নাজমুল হুদা নাসিম, বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিভাগের মো. আরিফুল ইসলাম, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের রাজিব আহমেদ ও মো. নাজিম উদ্দিনকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

এছাড়া বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম বর্ষ দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী যুব ভূঁইয়াকে র‌্যাগিং এর নামে শারীরিকভাবে নির্যাতন ও মাথায় রিভলবার ঠেকিয়ে ভয় দেখোনো হয়েছে বলে জানা গেছে।

তিনি আরও জানান, শিক্ষার্থীদের এ ধরনের আচরণ প্রক্টরীয় বিধি অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অভিযোগ পেলে অপরাধী যেই হোক না কেন, কোন ছাড় দেওয়া হবে না।

এ জাতীয় আরও খবর