বৃহস্পতিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৯০ দিনের কমিটি দিয়ে ১০ বছর

Awamileg logoমাহবুব খান বাবুল : সরাইল উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ। ২০০৪ সালের ২৫ মে অনুমোদন পেয়েছিল। অনুমোদন দিয়েছিলেন জেলা যুবলীগের তৎকালীন আহবায়ক মোঃ হেলাল উদ্দিন। বর্তমানে তিনি পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি। কিন্তু সরাইল যুবলীগ বদলায়নি এখনো। একে একে চলে গেছে দশটি বছর। যুবলীগের নতুন কমিটি গঠনের কোন উদ্যোগ নেই। ইচ্ছা থাকা সত্বে ও নতুন প্রজন্ম দায়িত্বে আসতে পারছে না। দীর্ঘদিন যুবলীগের পদ-পদবির  অপেক্ষায় থেকে অনেকে এখন ছিটকে গেছেন রাজনীতি থেকে। কেউ কেউ চলে গেছেন প্রবাসে। মৃত্যুবরন করেছেন অনেকে। দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, ২০০৪ সাল। সরাইল আওয়ামীলীগে তীব্র দলীয় কোন্দল। সংগঠনের যে কোন কমিটি গঠন করতে গেলে টানা খিঁচড়ার পাশাপাশি দলটিতে চলে উত্তেজনা। সেই সময়ে জেলা যুবলীগ মাহফুজ আলীকে আহবায়ক, আশরাফ উদ্দিন মন্তু ও কাজী আমিনুল ইসলাম শেলভীকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৩১ সদস্যের একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষনা করেন। ওই কমিটি দিয়েই চলছে যুবলীগের কার্যক্রম। দলীয় অফিস ও নিয়মিত সভা সমাবেশ না থাকলেও যথেষ্ট মূল্যায়ন রয়েছে তাদের সাক্ষরের। তিনজন আহবায়ক ছাড়া কমিটির অপর সদস্যদের চিনেন না অনেক ইউপি নেতা কর্মী। গত ১০ বছরে উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে গঠন করা হয়েছে যুবলীগের নতুন কমিটি। চলেছে ভাঙ্গা গড়ার খেলা। কিন্তু দলীয় কোন্দলের কারনে সরাইল যুবলীগ হয়ে পড়েছে নিস্ক্রিয়। এ ছাড়া ইকবাল আজাদ খুনের পর জেলা আওয়ামীলীগ সরাইল উপজেলার সকল অঙ্গ সংগঠনের কার্যক্রম স্থগিত করে দিয়েছেন। ফলে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী বিভক্তির মধ্য দিয়ে পালিত হলেও সাংগঠনিক কোন কার্যক্রম নেই সরাইলে। দ্রুত কাউন্সিলের মাধ্যমে যুবলীগের নতুন কমিটি প্রত্যাশা করছে ছাত্রলীগ ছেড়ে আসা নেতা কর্মীরা। বর্তমান উপজেলা যুবলীগের (কার্যক্রম স্থগিত কমিটি) যুগ্ম আহবায়ক আশরাফ উদ্দিন মন্তু ও কাজী আমিনুল ইসলাম শেলভী বলেন, আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল আজাদ খুনের পর কার্যক্রম বন্ধের পাশাপাশি দলে দেখা দেয় বিশৃঙ্খলা। সমগ্র সরাইল ছিল তখন উত্তাল। আমরা অতি দ্রুত গনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্রকাশ্যে কাউন্সিলের মাধ্যমে সরাইল উপজেলা যুবলীগের একটি নতুন কমিটি চাই। আহবায়ক (কার্যক্রম স্থগিত কমিটি) মোঃ মাহফুজ আলী কমিটি গঠনে দীর্ঘসূত্রিতার কথা স্বীকার করে বলেন, দলের কোন্দল এর জন্য অনেকাংশে দায়ী। নেতাদের মধ্যে কোন সমন্বয় নেই। সুযোগে বিভিন্ন সভা সমাবেশ সহ মাথা ছাড়া দিয়ে উঠছে জামাত শিবির ও বিএনপি। জেলা যুবলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট মাহাবুবুল আলম খোকন সরাইলে তীব্র দলীয় কোন্দলের কথা উল্লেখ করে বলেন, কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছি। অতিদ্রুত সরাইল যুবলীগের নতুন কমিটি হয়ে যাবে।