শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জান্নাত পেতে হলে মাকে খুশি রাখতে হবে

image_88576.eid a milমহানবী (সা.) এক দিন 'জান্নাতুল বাকী' কবরস্থানের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ কবরের দিকে নজর পড়ে গেল। কবরে ভীষণ আজাব চলছিল। কবরবাসী ছিল এক যুবক। আল্লাহর রাসূল (সা.) সাহাবিদের গ্রামের ভেতর পাঠালেন এবং নবী করীম (সা.)-এর কাছে আসতে বললেন। সাহাবীরা কবরস্থানের চারপাশের গ্রামবাসীকে দ্রুত কবরস্থানে আসার জন্য আহ্বান করলেন। এলাকাবাসী একের পর এক আসতে শুরু করল। নবী করীম (সা.) জিজ্ঞাসা করতে শুরু করলেন। এ কবরবাসী কে তোমরা চিন? উত্তরে বললেন, না, আমরা চিনি না। এভাবে জিজ্ঞাসা করতে থাকেন; কিন্তু পরিচয় পাওয়া যায় না। হঠাৎ নজর করে দেখে এক বৃদ্ধা লাঠিতে ভর করে আসছেন। নবী করীম (সা.)-এর কাছে এসে সালাম দিলেন। নবী করীম (সা.) বুড়িকে বললেন, কবরবাসী কে চিনেন। বুড়ি উত্তর দিলেন যে, কবরবাসী আমার ছেলে। নবী করীম (সা.) বললেন, ছেলে কি নামাজ-রোজা করত না? বুড়ি উত্তর দিল যে, হ্যাঁ নামাজ-রোজা করত। তাহলে, বলুন আপনার সঙ্গে কেমন আচরণ করত। বুড়ি উত্তর দিল, আমার সঙ্গে ভালো আচরণ করেনি। ছেলে থাকত দেশের বাইরে। বাড়িতে এলে আমি দৌড়ে ছেলের কাছে আসলাম। কিন্তু বউমা ছেলের কানে কানে কী যেন বলল, আমি দরজার কাছে গেলাম। ছেলে আমাকে ধাক্কা দিল। আমি দরজার সিঁড়ির ওপর পড়ে যাই। হুজুর, আমার কোমরে ব্যথা। আমি হাঁটতে পারি না, লাঠিতে ভর করে হাঁটি। নবী করীম (সা.) তাকে বললেন, আপনি আপনার ছেলেকে মাফ করে দেন। বুড়ি বললেন, না, আমি মাফ করব না। নবী করীম (সা.) আল্লাহর কাছে দোয়া করলেন। আল্লাহ বুড়ির অন্তরের চোখ কবরের দিকে ফিরিয়ে দাও। দোয়ার পরে বুড়ির অন্তরের চোখ খুলে গেল। বুড়ি বলল, হুজুর আমার ছেলের কবরে আজাব চলছে। আমি ছেলেকে মাফ করে দিলাম। আমার ছেলেকে আল্লাহ যেন মাফ করে দেন। আল্লাহর পক্ষ থেকে জবাব এলো, তোমার ছেলেকে ক্ষমা করা হয়েছে এবং জান্নাতের ফরাস বিছানা বিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। অতএব জান্নাত পেতে হলে মায়ের খুশি থাকা দরকার। [সূত্র : নুজহাতুল বাসাতিন]

এ জাতীয় আরও খবর

নজরুল পুরস্কার পেলেন চার গুণী

জামানত হারিয়েছেন ওবায়দুল কাদেরের ভাই শাহাদাত

ভিসা হয়নি ২৯২ হজযাত্রীর, ৯ এজেন্সির ব্যাখ্যা তলব

শাকিবের জীবনে প্রথম প্রেমিকা আমি : অপু বিশ্বাস

সাকিবের দলে খেলবেন মিলার

র‍্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমারের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

বেনজীরের বিরুদ্ধে টাকা সরানোর প্রমাণ পেয়েছে দুদক

ঈদযাত্রায় একদিন একটু কষ্ট হলে কী আসে-যায়: কাদের

ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক এমপি মনজুর হোসেন আর নেই

দস্যুতা না ছাড়লে দুঃসংবাদের খবর দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দেশের সবচেয়ে লাভজনক’ কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেন বন্ধ

সরকারের স্বার্থ নয়, জনগণের অধিকার নিশ্চিতে কাজ করব : ইসির নতুন সচিব