শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নেতা-কর্মীদের একা চলাচল না করার পরামর্শ বিএনপির

news-image

দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে একা চলাচল না করা, নির্জন, অনিরাপদ জায়গা এড়িয়ে চলাসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের ১০ দফা পরামর্শ দিয়েছে বিএনপি।


আজ শুক্রবার নয়াপল্টনে দলের প্রধান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব পরামর্শ দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশে যখন ভয়ংকর আতঙ্কের অবস্থা বিরাজ করছে, তখন আইনশৃঙ্খলা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক দাবি করে সরকার নাগরিকদের নিরাপত্তা নিয়ে চরম পরিহাস করে চলেছে। দায়িত্বশীল কেউ কেউ বিরোধী দলকে দায়ী করে চরম দায়িত্ব-জ্ঞানহীনতার পরিচয় দিচ্ছেন।’ মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে এমন রাজনৈতিক চাতুরী না করা আহ্বান জানান তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, নারায়ণগঞ্জে রোববারের হরতালে বিএনপির নৈতিক সমর্থন থাকবে।


গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক দলের গণজমায়েতে সারা দেশে ‘সাংগঠনিক রেড অ্যালার্ট’ জারি করেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ নেতা-কর্মীদের ১০ দফা নির্দেশনা দিলেন মির্জা ফখরুল। দফাগুলো হলো—


১. প্রত্যেকের আওতাধীন এলাকায় লিফলেট, পোস্টার, সভাসহ বিভিন্নভাবে অপহরণ, গুম সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করা এবং এ ধরনের অপরাধের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলা।


২. চলাফেরায় সতর্ক থাকা। একা চলাচল, নির্জন ও অনিরাপদ স্থান এড়িয়ে চলা।


৩. কর্মীরা নেতাদের, নেতারা কর্মীদের এবং সবাই মিলে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার দিকে খেয়াল রাখা। যত দূর সম্ভব পারস্পরিক যোগাযোগ বজায় রাখা।


৪. সাংবাদিক, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর স্থানীয় কর্মকর্তাদের ফোন নম্বর সংগ্রহে রাখা এবং যেকোনো দুর্ঘটনা ঘটলে দ্রুত জানানো।


৫. কেন্দ্রের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা।


৬. কোথাও অপহরণের সংবাদ পেলে তাত্ক্ষণিকভাবে সবাই মিলে উপস্থিত হওয়া।


৭. আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে কাউকে আটক করার চেষ্টা হলে তাঁদের পরিচয় এবং কোথায় নিয়ে নেওয়া হচ্ছে তা নিশ্চিত হওয়া।


৮. আটক ব্যক্তিকে যেখানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, দলবল নিয়ে সেখানে গিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলা।


৯. আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভুয়া পরিচয় দিলে তাদের প্রতিরোধ করা এবং পুলিশে সোপর্দ করা।


১০. ঘটনার শিকার ব্যক্তির পাশে দাঁড়ানো।