শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী সীমা দাসকে ধর্ষন করে হত্যা, – দাবী পরিবারের!

52fc6021f304b-indexপ্রতিনিধি :: শুক্রবার বিকেলে পোষ্ট মর্টেমের রিপোর্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা হাসপাতাল থেকে প্রদান করা হয়েছে বলে দাবী করেছেন বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় সীমা দাস (৯) নামের এক স্কুলছাত্রীর পিতা দরিদ্র তাপস দাস ।



তিনি বলেন আমার মেয়েকে ফারুক ও অহিদ ধর্ষন করে হত্যা করেছে । কিন্তু,আমি বহু চেষ্টা করেও পোষ্টমর্টেমের রিপোর্ট নিতে পারিনি । কারন,হত্যাকারীরা ধন্যাঢ্য । 



গত বুধবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে উপজেলার নিলখী গ্রামের পাশে বোরো ধানখেত থেকে লাশটি উদ্ধার করেছে পুলিশ । 



সীমা নিলখী গ্রামের কাঠমিস্ত্রি তাপস দাসের মেয়ে এবং মিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী । ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ফারুক মিয়া (১৮), অহিদ মিয়া (১৯) নামের দুজনকে আটক করা হয়, তাঁদের দুজনের বাড়ি সাহেবনগর গ্রামে।



বাঞ্ছারামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলাউদ্দিন বলেন, বোরো খেতের হাঁটু সমান পানিতে সীমার লাশ পাওয়া যায়। তিনি বলেন, সীমাকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন। তাঁকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছে কি না, তা লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা যাচ্ছে না । আমরা রিপোর্ট পাইনি, পেলে ব্যবস্থা সহ ধর্ষনের মামলাও হবে ।