মঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

এশীয় ক্রিকেটের মহোৎসব

530baf6f569f6-p-1পাঁচ অধিনায়কের মিছিলে যেমন সবার আগে, তেমনি সবার আগেই ট্রফিমঞ্চে গিয়ে দাঁড়ালেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু লাল কাপড়টা সরিয়ে ট্রফি উন্মোচনের পর স্বাগতিক দলের অধিনায়ক একটু পেছনে। সবার আগে ট্রফিটায় হাত রাখলেন গতবারের চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক। একে একে মুশফিকুর রহিম, ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি, শ্রীলঙ্কার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে ট্রফিতে স্পর্শ আগে লাগল না পরে, সেটি গুরুত্বহীন। টুর্নামেন্ট শেষে হাতে ওঠাটাই আসল। বাংলাদেশ অধিনায়ক সেই আশা ও আকাঙ্ক্ষায়ই হয়তো রইলেন।

দুই বছর আগে ট্রফিটা মুশফিকুর রহিমের হাতে শেষ আশ্রয় চেয়েও পায়নি। ‘ফটোফিনিশে’ পিছিয়ে পড়ায় সেটি উঠে যায় মিসবাহ-উল-হকের হাতে। এত কাছে গিয়ে ব্যর্থ হওয়ার যন্ত্রণা দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ফোটাতে পারে সাফল্যেরই ফুল। রানার্সআপের পর যেমন চ্যাম্পিয়নের আসনটাই থাকে অপেক্ষায়। যাত্রা শুরু হলে যেমন থাকে শুধু সামনে এগোনোর প্রেরণা। সেই চেনা মাঠ, চেনা পরিবেশ, চেনা দর্শক। আবারও বাংলাদেশের মাটিতে এশিয়া কাপ। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়ে আজ যার শুরু।

মাস তিনেক আগেও ভাবা যায়নি বাংলাদেশ এই দিনটাকে পাবে। জনপদে তখন আগুন, রক্ত, বারুদ আর ধ্বংসের নাচন। বাতাসে উড়ছিল সংশয়ের কালো মেঘ। কিন্তু এশিয়া কাপ ছেড়ে গেল না তার প্রিয় অঙ্গন। আবারও আয়োজক বাংলাদেশ। ৩০ বছর বয়সী এশিয়া কাপে চতুর্থবারের মতো। বাংলাদেশ তো খুশিই, এশিয়া কাপের মালিক এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) আনন্দও কম নয়। সৈয়দ আশরাফুল হকের শরীরী ভাষাতেই যার প্রকাশ। পরশু সাংবাদিক সমাবেশে এসিসির প্রধান নির্বাহী বলেও ফেললেন, ‘বলেছিলাম না, এশিয়া কাপ বাংলাদেশেই হবে?’

ওই প্রশ্নটা এখন মৃত। নতুন প্রশ্ন, কারা জিতবে ১১ দিন আর ১১ ম্যাচের এই টুর্নামেন্ট? বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক আত্মপ্রত্যয়ী, ধরে রাখবেন শিরোপা। নতুন অধিনায়ক বিরাট কোহলির কাঁধে চেপে ভারত এসেছে তীব্র তৃষায়। মাস খানেক এই দেশের মাটি-ঘাসের গন্ধ মেখে জয়ের নেশায় মত্ত শ্রীলঙ্কা। গত ব্যর্থতার যন্ত্রণা ভুলতে চায় এবার স্বাগতিক বাংলাদেশ। নতুন দল আফগানিস্তানের মধ্যেও ভয়ংকর এক প্রতিদ্বন্দ্বীকে খুঁজে ফিরছে বাকিরা। স্নায়ুপীড়ক তুমুল এক প্রতিদ্বন্দ্বিতারই আভাস দিচ্ছে দ্বাদশ এশিয়া কাপ। আসলে যা এশীয় ক্রিকেটের মহোৎসব।

শ্রীলঙ্কা সদ্যই এই মাটিতে শেষ করেছে তাদের সিরিজ, শেষটা জয়ের ধারাতেই। সাঙ্গাকারা-জয়াবর্ধনের দলটিকেই তাই হয়তো এগিয়ে রাখা যায়। পাকিস্তান অধিনায়কও এই মতে মাথা দুলিয়েছেন খানিকটা। যদিও বলেছেন, উপমহাদেশের এই কন্ডিশনটা সবার কাছে প্রায় একই রকম। পাকিস্তান-ভারতের তাই উদ্বেগের কিছু নেই। আর বাংলাদেশ? দেশের মাটিতে তারা কতটা ভয়ংকর, সেটি দেখা গেছে ২০১২ এশিয়া কাপেই। ফাল্গুন-চৈত্রের এই সময়টায় উইকেট থাকে শুষ্ক। স্পিন আর স্পিনের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ের বাহাদুরিটাই তখন আসল। যুদ্ধের ভেতরে লড়াইটা তাই কোহলি বনাম আজমল, হাফিজ বনাম অশ্বিন, সাঙ্গাকারা বনাম আজমল বা রোহিত বনাম সাচিত্রা হতেই পারে। হতে পারে মুশফিক বনাম আফ্রিদিও। আফগানিস্তান স্বভাবতই সবচেয়ে পেছনের নাম। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বড় দলগুলোর সঙ্গে খেলার অনভিজ্ঞতার কারণেই। তবে অঘটন একটা ঘটিয়ে ফেলা তাদের পক্ষেও খুবই সম্ভব। প্রত্যাশার চাপ না থাকলেই তো কোনো দল উপভোগের মন্ত্রে উজাড় করে দিতে পারে সর্বস্ব।

কিন্তু যে বাংলাদেশ গতবার এমন দাপটে দাঁড়াল ফাইনালে, সম্ভাবনার অঙ্কে তারা কেন এমন পেছনে? কারণ টুর্নামেন্টে নামছে খর্বশক্তির বাংলাদেশ। ঘাড়ের চোট ওপেনার তামিম ইকবালকে ছিটকে ফেলেছে পুরো টুর্নামেন্ট থেকেই। তিন ম্যাচ বহিষ্কারাদেশ কাটিয়ে সাকিব যখন ফিরবেন, বাংলাদেশ দুটি ম্যাচ খেলে ফেলবে ভারত ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে। ওই দুটি ম্যাচেরই ভেন্যু ফতুল্লা। এবার এশিয়া কাপে এই ভেন্যুটা যুক্ত হয়েছে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের সঙ্গে। রাউন্ড রবিন লিগের প্রথম পাঁচটি ম্যাচ হবে ওখানেই। ফতুল্লাই হয়তো সাজিয়ে দেবে দুই ফাইনালিস্টের গতিপথ। ২ মার্চ থেকে শুরু মিরপুর-পর্ব পর্যন্ত আশাটা ধরে রাখতে পারবে বাংলাদেশ?

বাংলাদেশের আশাটা আঁকা হয়ে যাচ্ছে এখানেও। অতীতে যখনই বিতর্ক ছুঁয়েছে, সাফল্য দিয়েই সেটির জবাব দিয়েছে বাংলাদেশ। যখনই বড় কোনো খেলোয়াড়কে কেড়ে নিয়েছে চোট, আলো ছড়িয়েছেন অন্য কেউ। ২০১০ সালে তামিম ছিলেন না, তাঁকে ছাড়াই নিউজিল্যান্ডকে ধবলধোলাই করা গেছে। ২০১৩ সালে সেই কিউইরা আবার যখন হলো ধবলধোলাই, ছিলেন না সাকিব আল হাসান।

এবার তামিম নেই, শুরুতে নেই সাকিবও। শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজয়ে ক্লিষ্ট বাংলাদেশ। আত্মবিশ্বাস ঠেকেছে তলানিতে। তবু অতীতই স্বপ্ন দেখায় বাংলাদেশকে। কেন দেখাবে না? মুশফিকের দল যে জানে, মন্দমন্থর পায়ে সন্ধ্যা নামলেও বিহঙ্গরা বন্ধ করে না পাখা!

এ জাতীয় আরও খবর

জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

প্রকাশ্যে চিত্রনায়িকা বুবলীর বেবি বাম্পের ছবি

চোখ ওঠা রোগীদের যে নির্দেশনা দিলো বিমানবন্দর

সেই মরিয়ম ও পরিবারের সদস্যদের গ্রেপ্তার দাবি

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে ৭ ধাপ উন্নতি ফারজানার

করতোয়ায় নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ৬৮, নিখোঁজ ৫

বাজিমাৎ করতে আসছে ‘পন্নিইন সেলভান’

ইরানে নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে বিক্ষোভে নিহত বেড়ে ৭৬

নিজের জন্য নয়, জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন প্রধানমন্ত্রী: কাদের

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

বৈশ্বিক সংকট নিয়ে বিএনপি ফায়দা লুটতে চায়: কাদের

বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় দেশ: প্রধানমন্ত্রী