রবিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মুম্বাইয়ের মার্কিন কূটনীতিককে নিয়ে বিতর্ক

52f87d67bf62c-US-India-Flagদেবযানী খোবরাগাড়ের ইস্যু নিয়ে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার উত্তেজনা এখনো পুরোপুরি যায়নি। এরই মধ্যে মুম্বাইয়ে নিযুক্ত মার্কিন কূটনীতিকের কাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে ভারতে।

অভিযোগ তোলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র দেবযানীর গৃহপরিচারিকার বেতন নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ তুললেও খোদ সে দেশের কূটনীতিক তাঁর পরিচারিকাকে কম বেতন দিচ্ছেন।

আজ সোমবার টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের খবরে জানানো হয়, মুম্বাইয়ে নিযুক্ত ওই মার্কিন কূটনীতিক তাঁর ফিলিপিনো গৃহপরিচারিকাকে ঘণ্টায় তিন ডলার (২৩৩ বাংলাদেশি টাকা) করে বেতন দেন। তবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ঘণ্টায় কমপক্ষে সোয়া সাত ডলার (৫৬৩ টাকা) দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।

মুম্বাইয়ে নিযুক্ত মার্কিন কূটনীতিক ও তাঁর ফিলিপিনো গৃহপরিচারিকার মধ্যে যে চুক্তি হয়েছে, এতে কর্ম ঘণ্টার বিষয়ে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলা নেই। তবে সপ্তাহে পূর্ণ ছয় দিন তাঁকে কাজ করতে হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ জন্য তাঁকে মাসে ৪৫৮ ডলার (৩৫ হাজার ৫৮৬ বাংলাদেশি টাকা) দেওয়া হবে। চুক্তিটি গত ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়েছে।

দেবযানীর বিরুদ্ধে ভিসা ও তথ্য জালিয়াতির অভিযোগ প্রত্যাহারে ভারত অনুরোধ করলেও তা নাকচ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর পর থেকে ভারতে অবস্থিত আমেরিকান অ্যাম্বাসি স্কুলে চাকরির নিয়োগের ক্ষেত্রে কর-সংক্রান্ত বিষয় এবং মার্কিন রাষ্ট্রদূতদের গৃহপরিচারিকাদের বিষয়টি নতুনভাবে খতিয়ে দেখছে দেশটির সরকার।

সরকারি তথ্যমতে, আমেরিকান অ্যাম্বাসি স্কুলে কর্মরত অনেক শিক্ষক ‘অবৈধভাবে’ কাজ করছেন। তাঁরা কর ও ভিসা আইন লঙ্ঘন করছেন বলে জানা গেছে।