বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ফ্লাওয়ার-অধ্যায়ের সমাপ্তি

52ec169e5bee3-10শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের সঙ্গে ইংল্যান্ড লায়ন্সের খেলা দেখতে গতকাল তাঁর উড়ে যাওয়ার কথা ছিল কলম্বোতে। সফরটা আকস্মিকভাবে বাতিল করে দেওয়াতেই বোঝা গিয়েছিল, কিছু একটা হয়েছে অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের। খবরটা এল তার কিছুক্ষণ পর। ব্রিটিশ দৈনিক টেলিগ্রাফ ‘ব্রেকিং নিউজ’ দিয়ে জানাল, চাকরি হারিয়েছেন ইংল্যান্ড কোচ। অ্যাশেজে ব্যর্থতার দায় অবশেষে চুকাতেই হলো সাবেক জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেটারকে। 

২০০৯ সালে দায়িত্ব নেওয়া ফ্লাওয়ারের অধীনে ঈর্ষণীয় সাফল্য পেয়েছে ইংল্যান্ড। টানা তিনটি অ্যাশেজ জিতিয়েছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা এনে দিয়েছেন। তাঁর অধীনেই তিন ধরনের ক্রিকেটে র্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে উঠেছিল ইংল্যান্ড। কিন্তু গত বছর নিজের দেশে অস্ট্রেলিয়াকে ৩-০তে সিরিজ হারানো ইংল্যান্ড ফিরতি অ্যাশেজে হেরেছে ৫-০ ব্যবধানে। লজ্জাজনক এই ব্যর্থতার পরও অবশ্য ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) প্রধান নির্বাহী ডেভিড কোলিয়ার বলেছিলেন, ফ্লাওয়ারের ওপরই তাঁরা আস্থাশীল। তবে ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধানের দায়িত্ব পাওয়া ইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক পল ডাউনটনের প্রতিবেদন বলছে অন্য কথা। পরশু লর্ডসে ইসিবির সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপনের পরই নাকি ফ্লাওয়ারকে সরে দাঁড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়। অবশ্য পদত্যাগের ঘোষণাটা নিজের মুখে দেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন ফ্লাওয়ার। ইসিবি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে অ্যাশেজে হতাশাজনক হারের পর আমার কাছে এটা পরিষ্কার যে, অ্যালিস্টার কুকের নেতৃত্বে এখন ইংল্যান্ড ক্রিকেটের নতুন মূল্যবোধ ও লক্ষ্য ঠিক করা দরকার।’

ইংল্যান্ড জাতীয় দলের কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হলেও ইংলিশ ক্রিকেটের সঙ্গেই হয়তো জড়িয়ে থাকবেন ফ্লাওয়ার। পল ডাউনটন জানিয়েছেন, ‘আমরা অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের সন্দেহাতীত যোগ্যতা ইংল্যান্ড ক্রিকেট কাঠামোয় কাজে লাগাতে ওকে অন্য ভূমিকায় রাখার চিন্তাভাবনা করছি।’ এএফপি।