শনিবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দিতে পারলাম না নিজের ভোট জেপি প্রার্থী ডাক্তার ফরিদ আহমেদ।

Faridব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের তোফায়েল আজম কিন্ডারগার্টেন কেন্দ্রে নিজের ভোট দিতে না পেরে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেন জেপি প্রার্থী ডাক্তার ফরিদ আহমেদ। তবে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অন্য তিন প্রতিদ্বন্দ্বীর কেউই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিবেচিত হননি। হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী জয়ী হবেন সেটিই নিশ্চিত ছিল। তবে বেশি ভোটের কারণে এই জয় এখন সমালোচিত হচ্ছে। তবে এটিও ঠিক, ভোটের দিন কোন কোন কেন্দ্রে বিশেষ করে আওয়ামী লীগ অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় ভোটার উপস্থিতি ছিল লক্ষ্য করার মতো।
এই আসনের পর বেশি ভোটের ব্যবধানে জয় হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে। তবে সেখানে ভোটের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন না উঠলেও কারচুপির অভিযোগ উঠেছে। এখানে জাতীয় পার্টির প্রার্থী কাজী মামুনুর রশিদ নির্বাচন বর্জন করেন নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে। এ আসনে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফয়জুর রহমান বাদল। তিনি পেয়েছেন ১ লাখ ৪০ হাজার ৫৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির কাজী মামুনুর রশিদ পেয়েছেন ১০ হাজার ৯৩৫ ভোট। আওয়ামী লীগ প্রার্থী যে ভোট পেয়েছেন তা নবম সংসদ নির্বাচনে এ আসনে জয়ী মহাজোট প্রার্থী জাসদ নেতা এডভোকেট শাহ জিকরুল আহমেদের ভোটের চেয়ে ২৫/২৭ হাজার বেশি। জিকরুলের প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ১ লাখ ১৩ হাজার ২৩০। তাই এখানে ভোটের সংখ্যা অসামঞ্জস্যপূর্ণ সে কথা উঠেনি। তবে বিভিন্ন কেন্দ্রে গায়েবি ভোটের আলোচনা আছে। নবম সংসদ নির্বাচনে মহাজোট প্রার্থীর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ৪ দলীয় জোটের কাজী মো. আনোয়ার হোসেন। তিনি পেয়েছিলেন ৭৪ হাজার ৯২২ ভোট। তবে মামুন নতুন মুখ হওয়ায় এবং জাতীয় পার্টি বিভক্ত থাকায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সঙ্গে তার প্রতিদ্বন্দ্বিতা ধারে-কাছের হবে না এমনটা আগেই আন্দাজ করতে পেরেছিলেন রাজনীতি সচেতনরা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনে ৬১ হাজার ৬৭৯ ভোটে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজুয়ান আহমেদকে হারিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী এডভোকেট সায়েদুল হক। তিনি পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৫৭৩ ভোট। আর রেজুয়ান আহমেদ পেয়েছেন ৭ হাজার ৮৯৪ ভোট। এডভোকেট সায়েদুল হক নবম সংসদ নির্বাচনে জয়ী হন ৯৯ হাজার ৯৭০ ভোট পেয়ে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ৪ দলীয় জোটের সৈয়দ একরামুজ্জামান পেয়েছিলেন প্রায় ৮৫ হাজার ৬১৭ ভোট। হেভিওয়েট প্রার্থী সায়েদুল হক জয়ী হবেন এটা ছিল নিশ্চিত। কারণ, জাপার প্রার্থী নির্বাচন ছিল বলতে গেলে কাগজে কলমে।
৪টি আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে। এখানে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধার সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় স্বতন্ত্র প্রার্থী নায়ার কবিরের। ৭ হাজার ৪৬২ ভোটে নায়ার পরাজিত হন মৃধার কাছে। তিনি পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৫০৮ ভোট। নায়ার পেয়েছেন ৩০ হাজার ৪৬ ভোট। মৃধা এর আগে নবম সংসদ নির্বাচনে ৪ দলীয় জোট প্রার্থী মুফতি ফজলুল হক আমিনীকে পরাজিত করেন। ওই নির্বাচনে মৃধা পেয়েছিলেন প্রায় ১ লাখ ৪৯ হাজার ভোট। আর আমিনী পেয়েছিলেন প্রায় ৯৯ হাজার ভোট। দশম সংসদ নির্বাচনে এ আসনটি আওয়ামী লীগের সঙ্গে ভাগাভাগিতে পায় জাতীয় পার্টি। এরপর আওয়ামী লীগ প্রার্থী উম্মে ফাতেমা সালমা বেগম তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের বিভক্তির কারণে একটি গ্রুপ স্বতন্ত্র প্রার্থী করে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হুমায়ুন কবিরের স্ত্রী নায়ার কবিরকে। হুমায়ুন কবিরের অবস্থানের কারণে নায়ার  শুরু থেকেই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিবেচিত হন। বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ছাড়া এখানে চাপাচাপির তেমন অভিযোগ মিলেনি। ভোটারের উপস্থিতির সঙ্গে ঘোষিত ফলাফলের তারতম্য হয়নি বলে জানা গেছে ভোট পর্যবেক্ষণকারী বিভিন্ন সূত্রের কাছ থেকে। যে কেন্দ্রে যেমন ভোট পড়েছে ফলাফল তেমনই এসেছে। পানিশ্বর ইউনিয়নের টিঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট পড়েছে মাত্র ৩৫টি। এ কেন্দ্রের মোট ভোটার ছিল সাড়ে ৩ হাজার। এই নির্বাচনী এলাকার মোট ভোটার দুই লাখ ৯২ হাজার ৫৩৯ জন। এর মধ্যে কাস্ট হয় প্রায় ৭০ হাজার। নির্বাচনে এ দু’জন ছাড়াও আরো ৫ প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। তাদের সবাই অবশ্য জামানত হারিয়েছেন।   

এ জাতীয় আরও খবর

আহসান কবীরকে চাপা দেওয়া সিটি করপোরেশনের গাড়িচালক গ্রেপ্তার

নাসিরনগরে স্থায়ী মন্দিরের নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

নাসিরনগরে ধান ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত ব‍্যাক্তির লাশ উদ্ধার

নাসিরনগরে তৈরি হচ্ছে দেশীয় মাছের নানা জাতের শুটকি

বিয়ের আগেই মা হচ্ছেন স্বরা!

রাস্তা হওয়া উচিত ক্যাটরিনার গালের মতো মসৃণ: রাজস্থানের মন্ত্রী

ঢাকায় বিএনপির মশাল মিছিল

খালেদাকে স্লো পয়জনিং করলে বিএনপির লোকেরাই করতে পারে: কাদের

গণতন্ত্রের কথা বলে যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশকে চাপে রাখতে চায়

লাইসেন্স ছাড়াই ডিএসসিসির গাড়ি চলাচ্ছিলেন হারুন-রাসেল: র‌্যাব

সেই লিটন, এই লিটন

ভোলায় মাঝনদীতে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের লক্ষ্য করে গুলি, নিহত ১