বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিকেল তিনটার দিকে বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন খালেদা

khaled-2‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচিতে শামিল হতে বাড়ি থেকে বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি আজ রোববার বিকেল তিনটার দিকে বিএনপির কেন্দ্রিয় কার্যালয় রাজধানীর নয়াপল্টনের দিকে যাওয়ার জন্য তার গুলশানের বাড়ি থেকে আবার বের হওয়ার চেষ্টা করবেন। এর আগে আজ দুপুরে দুইবার বাড়ি থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করেও পুলিশি বাধার কারণে তিনি নয়াপল্টনের দিকে যেতে পারেননি বলে বিএনপির শীর্ষ দুই নেতা জানিয়েছেন ।

আজ দুপুর একটার দিকে বিএনপির প্রেস উইংয়ের কর্মকর্তা শায়রুল কবির সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা কর্মসূচিতে শামিল হতে বের হওয়ার চেষ্টা করলেও বের হতে পারেননি খালেদা জিয়া। দুপুর সোয়া একটার দিকে খালেদা জিয়া তার গাড়িতেও উঠে বসলেও বাড়ির প্রধান ফটক পুলিশ ঘিরে রাখায় তিনি বের হতে পারেননি। এর আগে দুপুর বারোটার দিকে তিনি একবার গাড়িতে উঠে বসলেও বের হতে না পেরে গাড়ি থেকে নেমে যান।’

খালেদা জিয়ার গুলশানের বাসভবনের সামনে পুলিশের নিরাপত্তা আরও বাড়ানো হয়েছে। বর্তমানে আট প্লাটুন পুলিশ বাড়িটি ঘিরে রেখেছে। আরও দুই প্লাটুন পুলিশ মোতায়েনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানা গেছে। সকাল সাড়ে দশটার দিকে বাড়ির সামনে একটি জলকামানও নেয়া হয়।

এছাড়া বাড়ির সামনের রাস্তায় বালুভর্তি তিনটি ট্রাক, পেছনের রাস্তায় দুটি ট্রাক আড়াআড়িভাবে রেখে সড়ক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বাড়ির সামনে সাংবাদিকদেরকে যেতে দেয়া হচ্ছে না।

সেখানে নিরাপত্তায় থাকা কয়েক পুলিশ সদস্য জানান, গতকাল রাতভর সেখানে পুলিশের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এখনো অনেকে আছেন।

গতকাল শনিবার খালেদা জিয়ার সরকারি প্রটোকল প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির। গত রাতে তিনি এক বিবৃতিতে প্রটোকল ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানান। তবে পুলিশ বলেছেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রটোকল প্রত্যাহার হয়নি, কেবল নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।’

বিরোধীদলীয় নেত্রী হিসেবে খালেদা জিয়া সরকারি প্রটোকলের আওতায় গাড়ি, নিরাপত্তাসহ আনুষঙ্গিক কিছু সুবিধা পেয়ে থাকেন।

গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়া ২৯ ডিসেম্বর বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের জোটের ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচির ঘোষণা দেন। এরই অংশ হিসেবে আজ নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রিয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার কথা। কিন্তু পুলিশ তাদের সমাবেশ করার অনুমতি না দিলেও যে কোনো মূল্যে কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে ১৮ দলের জোট।

আর ওই কর্মসূচিতে খালেদা জিয়া উপস্থিত থেকে নেতৃত্ব দেবেন বলে গতকাল বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমদ জানান।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে তফসিল বাতিল, দলনিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের দাবিতে আজকের কর্মসূচির ঘোষণা করেছিলেন খালেদা জিয়া। এরপর মঙ্গলবার গভীর রাতে তারা বাড়ির সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

এর আগে হরতাল ঘোষণার পর গত ৮ নভেম্বর রাত থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত খালেদা জিয়ার বাসা, তার রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। ওইসময় চেয়ারপারসনের বাসা থেকে বের হওয়ার মুখে তার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আব্দুল আউয়াল মিন্টু, বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা এখনও কারাগারে আছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

স্পেনে ৩১৯ অভিবাসী উদ্ধার, নিহত ১৮

সিলেটের সাংবাদিকদের হাতাহাতিও থামালেন জাফর ইকবাল

‘ফায়ার ইমোজি’র মতো পোশাক, কটাক্ষের শিকার দীপিকা

সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ

দেশে প্রতি ১০ জনে ৭ জন মারা যাচ্ছে অসংক্রামক রোগে

সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত আমির খসরু

‘শাবিতে পুলিশি হামলার সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে’

কাস্টমসকে আরো প্রযুক্তিনির্ভর হতে হবে

সিয়াম আমার মন জয় করে নিয়েছে, ‘ভক্ত’ হয়ে গিয়েছি : রিয়াজ

ওমিক্রন নিয়ে ‘ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন’ চূড়ান্ত

টিআইবি রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহৃত হয় : তথ্যমন্ত্রী

ভারত ও মিয়ানমার থেকে আসা বিষাক্ত বস্তুকণায় দূষিত ঢাকার বাতাস