শুক্রবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ৭ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দীর্ঘকালীন সংকটে পড়তে যাচ্ছে অর্থনীতি

Bd Bank-2টানা হরতাল ও অবরোধের কারণে দেশের অর্থনীতি এক দীর্ঘকালীন সংকটে পড়তে যাচ্ছে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীরা৷ পোশাক খাতে প্রতিদিন গড়ে ক্ষতি হচ্ছে ২৫০ কোটি টাকা৷ ক্রেতারাও আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন৷


একটি পোশাক কারখানার মালিক ইসমাইল হোসেন বলেন, দেশের অনেক পোশাক কারাখানা এখন সময়মত ক্রেতাদের পোশাক সরবরাহ করতে পারছে না৷ আর কাঁচামালের সংকট ধীরে ধীরে প্রকট হয়ে উঠছে৷ এই অবস্থায় ক্রেতারা যদি স্থায়ীভাবে মুখ ফিরিয়ে নেন তাহলে পোশাক শিল্প বড় ধরনের সংকটে পড়বে৷ ক্রেতারা ইতোমধ্যেই ভারত ও চীনে বিকল্প বাজারের কথা ভাবছেন৷


তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমই-এর সভাপতি আতিকুল ইসলাম জানান, সবচেয়ে বড় আশঙ্কার কথা হলো এখন যে রাজনৈতিক সংকট চলছে তা সমাধানের কোনো আভাস দেখা যাচ্ছে না৷ বাইরের বিশ্বও মনে করে, এই সংকট দীর্ঘায়িত হতে পারে৷ তাই যদি হয় তাহলে পোশাক শিল্প মুখ থুবড়ে পড়তে পারে৷ এতে করে পোশাক খাতে কর্মরত ৪০ লাখ শ্রমিক বিশেষ করে মহিলা শ্রমিকরা পথে বসে যাবেন৷


ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই-এর সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন জানান তাদের হিসেবে, এখন প্রতিদিন গড়ে বাংলাদেশের শিল্প এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ২ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হচ্ছে৷ এছাড়া একটি ব্যবসা বা শিল্পের সঙ্গে আরেকটি শিল্পের আন্তঃসম্পর্ক রয়েছে৷ ফলে একটি শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হলে আরেকটিতে তার প্রভাব পড়ে৷ এতে করে এক ধরনের নেতিবাচক ‘চেইন রিএ্যাকশন' এ পড়ে যাচ্ছে দেশের উৎপাদন এবং রপ্তানি খাত৷


তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা এজন্যই পথে নেমেছেন, দাবি জানাচ্ছেন রাজনৈতিক সমঝোতার৷ বন্ধ করতে বলছেন হরতাল, অবরোধ৷ কিন্তু তাঁদের কথায় কোনো রাজনৈতিক দলই কান দিচ্ছে না বলেও জানান ব্যবসায়ীদের নেতা কাজী আকরাম উদ্দিন৷


সিপিডির অর্থনীতিবিদ ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম জানান, উৎপাদন খাতের সঙ্গে সঙ্গে এর সহায়ক শিল্প, সেবাখাত এবং ব্যাংকিং খাত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে৷ ফলে পুরো শিল্প এবং ব্যবসা-বাণিজ্য এখন হুমকির মুখে৷ দেশে উৎপাদিত পণ্যের সরবরাহ ব্যবস্থা সংকুচিত হয়ে পড়ছে৷ একই সঙ্গে কাঁচামালের সরবরাহ বিঘ্নিত হওয়ায় উৎপাদনও হচ্ছে না ঠিকমত৷ ফলে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং শিল্প মন্দার মধ্যে পড়ে গেছে৷


তিনি বলেন, রাজনৈতিক সংকট কেটে যাওয়ার এখনো কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না৷ তাই দীর্ঘমেয়াদে এই সংকট দেশের অর্থনীতিকে বিপর্যস্ত করবে৷ এক দীর্ঘকালীন সংকটে পড়তে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি৷


গোলাম মোয়াজ্জেম জানান, অনেক ছোট ছোট শিল্প কারখানা আছে যেগুলো প্রতিদিনের উৎপাদন এবং সরবরাহের ওপর নির্ভরশীল৷ টানা অবরোধ, হরতালের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সেই সব শিল্প৷ আর সেখানে কর্মরত শ্রমিকরা কাজ হারাতে শুরু করেছেন৷


আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল মনে করে, চলতি অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি কোনোভাবেই ৫ থেকে সাড়ে ৫ ভাগের বেশি হবে না৷ অর্থনীতির জন্য এটি হবে একটি বড় ধাক্কা৷


গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, সিপিডিও মনে করে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা এবার অর্জিত হবে না৷ তবে সবচেয়ে আশঙ্কার কথা, কয়েক দশকের চেষ্টায় দেশে ও দেশের বাইরে তৈরি পোশাক শিল্পসহ রপ্তানি পণ্যের একটি বাজার এবং সরবরাহ ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে৷ এটা যদি একবার নষ্ট হয় তাহলে সেটা গড়ে তুলতে আবারো অনেক সময় লাগবে৷ ফলে অর্থনীতি পড়বে বড় সংকটে, বাড়বে বেকারত্ব৷ রাজনীতিবিদদের এই কথাটা বুঝতে হবে৷ বিশ্ব মন্দার ধাক্কা সামাল দিতে পারলেও এই ধাক্কা সামলানো কঠিন হবে।

 

এ জাতীয় আরও খবর

কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে ডুবল ঢাকা, সড়কে তীব্র যানজট-ভোগান্তি

ঢাকায় অতিবৃষ্টি, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৪

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড প্রথম ম্যাচ পরিত্যক্ত

১২ ট্রাক ইলিশ গেল ভারতে

রিটার্ন দিলে ২২ খাতের আয়ে দিতে হবে না কর

রংপুর ডিআইজি কার্যালয়ে যোগ দিলেন এডিসি হারুন

নতুন মডেলে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সংকট নিরসন চায় আইএমএফ

ব্যাংকে ঢুকে ২০ লাখ টাকা ছিনতাই, দুই পুলিশসহ গ্রেফতার ৫

রাজ যেসব অন্যায় করেছেন তাতে জেল হওয়ার কথা : পরীমণি

যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক-নির্বাচন পর্যালোচনা দল আসছে অক্টোবরে

নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করলো পাকিস্তান

জলবায়ু সংকট এড়াতে প্রধান অর্থনীতির দেশগুলোকে সৎ থাকতে হবে : প্রধানমন্ত্রী