মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কিছুক্ষণের মধ্যে নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভার শপথ

Govment Logoআগামী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ‘নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা’ শপথ নিচ্ছে কিছুক্ষণের মধ্যে। সোমবার বিকেল তিনটায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নতুন মন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন। ইতিমধ্যে ওই মন্ত্রিপরিষদে প্রস্তাবিত সদস্যরা বঙ্গভবনে আসতে শুরু করেছেন। এই মন্ত্রিসভায় যোগ দিচ্ছে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি (জাপা)।

 

নতুন মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে ইতিমধে বঙ্গভবনে পৌঁছেছেন আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় পার্টির রওশন এরশাদ, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু, রুহুল আমিন হাওলাদার ও সালমা ইসলাম।

রোববার রাতে বঙ্গভবনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মোশাররফ হোসাইন ভূইঞা শপথের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন। এর আগে সন্ধ্যা সাতটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তারা রাত পৌনে আটটা পর্যন্ত বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আজ শপথ হওয়ার কথা জানান।

 

তবে নির্বাচনকালীন এই সরকারকে ‘সর্বদলীয়’ বলা হলেও প্রধান বিরোধী দল বিএনপি থাকছে না। তারা নতুন এই শপথকে ‘তামাশা’ হিসেবে উল্লেখ করেছে।

 

সূত্র জানায়, নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভায় আওয়ামী লীগ ছাড়াও জাতীয় পার্টি থেকে ছয়জন, ওয়ার্কার্স পার্টি থেকে দুজন ও জাসদ (ইনু) থেকে দুজনের প্রতিনিধিত্ব থাকতে পারে। তবে পরে অন্য দল থেকেও কাউকে অন্তর্ভুক্ত করা হতে পারে। মন্ত্রী হতে পারেন জাতীয় পার্টির (জেপি) আনোয়ার হোসেন মঞ্জুও। এ মন্ত্রিসভার আকার ২৫ থেকে ৩০ সদস্যের মধ্যে হতে পারে। বর্তমান মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা নতুন মন্ত্রিসভায় থাকলে তাদের নতুন করে শপথ নেয়ার প্রয়োজন নেই।

 

এদিকে জাতীয় পার্টি জানিয়েছে তারা সর্বদলীয় মন্ত্রিসভায় অংশ নেবে এবং নির্বাচনে যাবে। প্রধান বিরোধী দল বিএনপিকেও ওই সরকার এবং নির্বাচনে আসার অনুরোধ জানিয়েছেন জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।