মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গ্রেফতার হতে পারেন খালেদা

Khaledaবিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি ভাবছে সরকার। তত্ত্ববধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলনের প্রেক্ষিতে এবং সরকারের সঙ্গে সংলাপ না হওয়ায় নির্বাচন নিয়ে বিরোধীদলের সঙ্গে কোনো সমঝোতা হয়নি। প্রধান বিরোধীদল বিএনপি’কে ছাড়াই নির্বাচনে এগিয়ে যাচ্ছে সরকার। রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এমনটাই আভাস পাওয়া যাচ্ছে। আর এমন প্রেক্ষাপটে বিএনপির পাঁচ নেতাকে গ্রেফতারের পর দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি ভেবে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ইনু এ কথা জানান।
ইনু বলেন, বিএনপির পাঁচ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে হরতালে মানুষ মারার মদদদাতা হিসেবে। কারণ মানুষ মারার দায় তারা এড়াতে পারেন না। দলের শীর্ষনেতা হিসেবে এই দায়ভার তাদের নিতে হবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশকে তেঁতুল হুজুর ও যুদ্ধাপরাধী জামায়াত ইসলামীর কাছে সঁপে দেবার পরিকল্পনা হচ্ছে। এর নেতৃত্ব দিচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া। তাদের প্রতিহত করতে হবে। মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানে আয়োজন করে মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন জাতীয় কমিটি।

এদিকে খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হতে পারেন এমন আশঙ্কা করছে তার দল বিএনপি। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তারের শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, আমরা আশঙ্কা করছি বিএনপির শীর্ষ তিন নেতার গ্রেপ্তারের পর এবার আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করতে পারে।
ইতোমধ্যে তার বাসার সামনে গোয়েন্দা পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশের অতিরিক্ত ফোর্স পাঠানো হয়েছে। থেকেই গোয়েন্দা পুলিশের নজরদারিতে খালেদা জিয়ার গুলশানের বাসভবন।

শনিবার নয়াপল্টনে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির দপ্তরের দায়িত্বে থাকা রিজভী আহমদ এসব কথা জানান।
তিনি বলেন, একদলীয় নির্বাচন করতেই সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করতে চাইছে।

শুক্রবার নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে ৭২ ঘণ্টা হরতাল ঘোষণার পর রাতে বিএনপির ¯’ায়ী কমিটির তিন নেতাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। পরে ঐ রাতেই গুলশানে খালেদা জিয়ার বাসা থেকে বের হওয়ার সময় চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু ও খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারি শিমুল বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এসব ঘটনায় অনেকেই শঙ্কা প্রকাশ করছেন ১৮ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকেও গ্রেপ্তার করা হতে পারে। বিরোধী দলীয় নেতার বাসভবন ঘিরে গোয়েন্দা পুলিশ অবস্থান করায় সেই আশঙ্কা আরও প্রকট হচ্ছে।